১১:১৪ এএম | টাঙ্গাইল, সোমবার, ২০ মে ২০১৯
প্রতিষ্ঠাতা মরহুম আব্দুল ওয়াহেদ মিয়া

ভাষা আন্দোলনেও গৌরবময় টাঙ্গাইল

১৯৪৬ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই শহীদ মিনার

কাজল আর্য | টাঙ্গাইল২৪.কম | মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ | | ৯২৭
টাঙ্গাইলের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার।
, টাঙ্গাইল :

পৃথিবীতে একমাত্র বাঙালী জাতিই মাতৃভাষার জন্য আত্মদান দিয়েছে। ৭১ এর স্বাধীনতা সংগ্রামের মূলভিত ৫২ এর ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে রচিত হয়েছিল। ২১ ফেব্রুয়ারী শুধু আমার বা আমাদের বাঙালীর অহংকার নয়। এখন পুরো বিশে^র অধিকার আদায়ের পথ প্রদর্শকও। যার স্বীকৃতি ১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো দিয়েছে।

মহান মুক্তিযুদ্ধে যেমন টাঙ্গাইলে বীরত্বগাথা ইতিহাস রয়েছে। তেমনি ৫২ এর ভাষা আন্দোলনেও রয়েছে গৌরবময় ভূমিকা। টাঙ্গাইলের অনেক বীর সন্তান ভাষা আন্দোলনে জাতীয়ভাবে নেতৃত্ব দিয়েছেন। মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী ও আওয়ামী মুসলিম লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক শামসুল হক অগ্রভাবে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। এছাড়া আবদুল মান্নান, ড. মফিজ উদ্দিন আহমদ, ডা. মির্জা মাজহারুল ইসলাম (২০১৮ সালের একুশে পদক দেয়ার জন্যে মনোনীত), বেগম ফজিলাতুন্নেছা, সোফিয়া খান, সাইয়িদ আতিকুল­াহ ও আব্দুস সালাম উলে­খযোগ্য। তাদের অনেকেই আন্দোলন করতে গিয়ে জেল জুলুম ভোগ করেছেন।

এদিকে ভাষা আন্দোলনের সময়ে টাঙ্গাইলেও গড়ে উঠেছিল দুর্বার আন্দোলন। এখানে নেতৃত্ব দিয়েছেন বদিউজ্জামান খান, সৈয়দ আবদুল মতিন, সৈয়দ নুরুল হুদা, শামসুর রহমান খান শাজাহান, মির্জা তোফাজ্জল হোসেন মুকুল. আবু সাঈদ খান, হাতেম আলী তালুকদার, রমিনুজ্জামান খান রইজ, নারায়ন চন্দ্র বিশ^াস. ঋষিকেশ পোদ্দার, হাবিবুর রহমান, বুলবুল খান মাহবুব, নাজমি আরা রুবি প্রমুখ। ১৯৫২ সালের ২২ ফেব্রুয়ারী রাতে সরকারের হুলিয়া মাথায় নিয়ে তৎকালীন রমেশ হলের নিকটে (বর্তমানে সাধারণ পাঠাগারের পশ্চিমপাশে) তারা টাঙ্গাইলে সর্বপ্রথম শহীদ মিনার স্থাপন করেন। বর্তমানে শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারটি ৩য় সংস্করণের রুপ।

ভাষা আন্দোলনে টাঙ্গাইলের গুরুত্বপূর্ণ অবদান থাকলেও জেলার ১৯৪৬ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই শহীদ মিনার। এতে দেশপ্রেম ও চেতনা প্রশ্নবিদ্ধ বলে মন্তব্য করেছেন ভাষা সৈনিকগণ।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস জানায় টাঙ্গাইলের ১২ টি উপজেলায় সরকারি ও জাতীয়করণকৃত মোট ১৬২৯ টি বিদ্যালয়ের মধ্যে ১৫১৬ টিতেই শহীদ মিনার নেই। এরমধ্যে ঘাটাইলের ১৭৩টির মধ্যে ৫টিতে, সখিপুরে ১৫০ টির মধ্যে ৬টিতে, গোপালপুরে ১৬১টির মধ্যে ৭টিতে, বাসাইলে ৭৯ টির মধ্যে ৩ টিতে, টাঙ্গাইল সদরের ১৬৪ টির মধ্যে ১৩ টিতে, দেলদুয়ারের ১০০ টির মধ্যে ৫ টিতে, মির্জাপুরে ১৬৯ টির মধ্যে ৭ টিতে, কালিহাতীর ১৭২ টির মধ্যে ২৬ টিতে, মধুপুরে ১১০ টির মধ্যে ১০ টিতে, নাগরপুরে ১৫৬ টির মধ্যে ৭ টিতে, ভূঞাপুরে ১১০ টির মধ্যে ২ টিতে এবং ধনবাড়ীর ৮৫ টির মধ্যে ২২ টিতে মোট ১১৩ টি বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার রয়েছে।

এদিকে জেলা শিক্ষা অফিসের অধীনে ৮০৫ টি হাইস্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা রয়েছে। এরমধ্যে ৪৩০ টি প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই। অফিস সূত্রে জানা যায় টাঙ্গাইল সদরের ৭৪ টির মধ্যে ১০ টিতে, বাসাইলের ৪০ টির মধ্যে ১৫ টিতে, কালিহাতীর ৮৩ টির মধ্যে ২৭ টিতে, সখিপুরের ৫৫ টির মধ্যে ৩১ টিতে, ঘাটাইলের ৪৯ টির মধ্যে ২৫ টিতে, গোপালপুরের ৭০ টির মধ্যে ৪০ টিতে, মধুপুরের ৯২ টির মধ্যে ৩৮ টিতে, ধনবাড়ীর ৫৬ টির মধ্যে ২৫ টিতে, মির্জাপুরের ৭৯ টির মধ্যে ৪৯ টিতে, দেলদুয়ারের ১০৬ টির মধ্যে ৫০ টিতে, নাগরপুরের ৪১ টির মধ্যে ২৭ টিতে ও ভূঞাপুরের ৬০ টির মধ্যে ৩৮ টিতে মোট ৩৭৫ টি প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার রয়েছে।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল আজিজ বলেন, বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণের জন্যে সরকারিভাবে বরাদ্দ থাকে না। শিশুদের মনে মাতৃভাষার যথাযথ ইতিহাস তুলে ধরার জন্য শিক্ষাখাতের বরাদ্দ থেকে কিংবা বিত্তবানদের সহযোগিতায় প্রতিটি বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ করা দরকার।

টাঙ্গাইলের ভাষা সৈনিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রখ্যাত কবি বুলবুল খান মাহবুব আমাদের সময়কে বলেন, ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের বীজ রোপিত হয়েছিল ৫২ এর ভাষা আন্দোলনে। ২১শে ফেব্র“য়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, যা সারাবিশে^ পালিত হয়। ভাষা আন্দোলন এবং মুক্তিযুদ্ধের বহু বছর চলে গেলেও টাঙ্গাইলের এতোগুলো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার না থাকা অত্যন্ত লজ্জার ও হতাশাজনক। এতে আমাদের দেশপ্রেম ও বাঙালীর চেতনাবোধ প্রশ্নবিদ্ধ। আইন করে হলেও মাদ্রাসাসহ প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণ বাধ্যতামূলক করা উচিত।

টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( শিক্ষা) আশরাফুল মমিন বলেন, টাঙ্গাইল জেলার এতগুলো শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই এই সুনির্দিষ্ট তথ্য আমাদের জানা ছিলনা। মাদ্রাসাসহ প্রতিটি বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার থাকা উচিত। প্রতিষ্ঠানগুলোতে শহীদ মিনার নির্মাণ করা জন্যে আমরা বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে অনুপ্রাণিত করবো। সেইসাথে এবিষয়ে সরকারের দৃষ্টিগোচর এবং আর্থিক সহযোগিতার জন্যে মন্ত্রনালয় বরাবর লিখবো।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে অ‌বৈধ স্থাপনা উ‌চ্ছেদ আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৩ সদস্য গ্রেফতার ইউএনও'র বিরুদ্ধে করা সেই মামলাটি প্রত্যাহার করলেন বাদীর কুমুদিনী হাসপাতাল খেয়াঘাটে বাঁশের সাঁকো ভেঙ্গে জনদুর্ভে সংস্কারের নামে ঐতিহ্যবাহী মাঠের টাকা লুটের অভিযোগ ঘাটাইলে সরকারী ভাবে ধান ও চাল সংগ্রহ শুরু বিটেকের সাবেক শিক্ষার্থীদের ইফতার মাহফিল  দেশে প্রয়োজনের বেশি ধান চাষ হচ্ছে : কৃষিমন্ত্রী নদীর বেইলী ব্রিজ দেবে যান চলাচল বন্ধ ঝড়ে লন্ডভন্ড ঘরবাড়ি বিড়ি শিল্প রক্ষার্থে আঞ্চলিক সমাবেশ ও মানববন্ধন নগর নাট্যদলের দোয়া ও ইফতার মাহফিল বিভিন্ন রেস্তরায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অর্থদন্ড মেয়ের লাশের ছবি দেখে সনাক্ত করলেন মা ১ হাজার ৪০ টাকা মণে ধান সংগ্রহ শুরু

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

নির্মান ও ডিজাইন : মঈনুল ইসলাম, পাওয়ার বাই: জিরোওয়ানবিডি