১০:৫০ এএম | টাঙ্গাইল, সোমবার, ২০ মে ২০১৯
প্রতিষ্ঠাতা মরহুম আব্দুল ওয়াহেদ মিয়া

রাতের আধারে অবৈধভাবে গ্যাস বিক্রির মহোৎসব

জাহাঙ্গীর হোসেন | টাঙ্গাইল২৪.কম | শনিবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৭ | | ৩০২
, টাঙ্গাইল :

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর বাইপাসের মা সিএনজি ফিলিং স্টেশনে রাতের আধারে অবৈধভাবে গ্যাস বিক্রির মহোৎসব চলছে।

আইনের তোয়াক্কা না করেই মাসের পর মাস ধরে ঝুঁকিপূর্ণ সিলিন্ডারের মাধ্যমে গ্যাস বিক্রি ও সরবরাহ করছে পাম্প কর্তৃপক্ষ।

এর আগে একই অভিযোগে পাম্প মালিককে কয়েক দফায় জরিমানা করলেও অবৈধ গ্যাস বিক্রি ও সরবরাহ চালু অব্যাহত রয়েছে বলে অনুসন্ধানে জানা গেছে।

জানা যায়, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুর বাইপাসের বাওয়ার কুমারজানী এলাকায় অবস্থিত মা সিএনজি ফিলিং স্টেশনের বিরুদ্ধে শুরু থেকেই মিটার কারসাজির মাধ্যমে গ্যাস চুরি, অনিয়মিত বিল পরিশোধসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। ইতিপূর্বে মিটার কারসাজি (টেম্পারিং) মাধ্যমে গ্যাস চুরির বিষয়টি ধরা পড়লে কয়েক দফায় জরিমানা দেয় পাম্প কর্তৃপক্ষ।

এছাড়া একই অপরাধ বার বার করায় অস্থায়ী সময়ের জন্য পাম্পটিতে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ।

গত এক বছরেরও কম সময় আগে ঝুঁকিপূর্ণভাবে সিলিন্ডারের মাধ্যমে গ্যাস বিক্রি ও সরবরাহের সময় হাতেনাতে ধরে ফেলেন তৎসময়ের মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুম আহমেদ। পরে উচ্চ মহল থেকে একাধিক তদবির করে মাত্র পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানা দিয়ে সেযাত্রায় পার পায় পাম্পের মালিক ইব্রাহিম মিয়া।

২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে ঝুঁকিপূর্ণভাবে সিলিন্ডারের মাধ্যমে গ্যাস বিক্রি ও সরবরাহের অভিযোগে গাজীপুর মহানগর এলাকার পাঁচটি সিএনজি স্টেশনের লাইসেন্স বাতিল করে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)।

কমিশনের এমন শক্ত অবস্থানের পরও মাসের পর মাস ধরে ঝুঁকিপূর্ণ সিলিন্ডারে রাতের আধারে গ্যাস বিক্রি ও সরবরাহ চালু রেখেছে মা সিএনজি কর্তৃপক্ষ।

এক সপ্তাহের বেশী সময় ধরে রাতে মা সিএনজি ফিলিং স্টেশন এলাকায় সরেজমিনে অবস্থান করে দেখা যায়, খুলনা অক্সিজেন লিমিডেট লেখা নামে (ঢাকা মেট্রো ট-১৫-১৪৮৭) একটি বিশাল আকৃতির কাভার্ড ভ্যান রাত দশটার পর ওই পাম্পে এসে অবস্থান নেয়।

পরে কাভার্ড ভ্যানটি অবস্থান সন্দেহজনক মনে হওয়ায় কাছে গিয়ে দেখা যায় কাভার্ড ভ্যানের ভেতরে মাল বহনের স্থানে সারি সারি ঝুঁকিপূর্ণ গ্যাস সিলিন্ডার রয়েছে। রাত এগারোটার পর থেকে এই কাভার্ড ভ্যানে গ্যাস সরবরাহ শুরু হয়ে ভোররাত অবধি তা চলতে থাকে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে সিএনজি পাম্পের এককর্মী জানায়, কাভার্ড ভ্যানে গ্যাস ভরতে ৫-৬ ঘন্টা সময় লাগে। ওই কাভার্ড ভ্যানে এক সাথে এক লাখ টাকার ওপরে গ্যাস সরবরাহ করা করা হয়।

খোঁজ নিয়ে আরও জানা যায়, ব্যস্ততম মহাসড়কে অবস্থিত এই পাম্পে প্রতি মাসে ৯০ লাখ থেকে এক কোটি টাকার গ্যাস বিক্রি হয়ে থাকে। আর মাসে প্রায় ৩৫ থেকে ৪০ লাখ টাকা মূল্যের গ্যাস অবৈধভাবে বিক্রি হয়।

এ ব্যাপারে মা সিএনজি ফিলিং স্টেশনের মালিক ইব্রাহিম মিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে কাভার্ড ভ্যানে ঝুঁকিপূর্ণ সিলিন্ডার গ্যাস বিক্রির কথা স্বীকার করে বলেন, যে কাভার্ড ভ্যানে গ্যাস বিক্রি করা হয় সেটা বেধ।

খুলনা অক্সিজেন লিমিটেড লেখা কাভার্ড ভ্যানে ভর্তি শতশত সিলিন্ডারে সিএনজি গ্যাস সরবরাহের বিষয়ে তিনি বলেন, খুলনা অক্সিজেন একটি গ্রুপ অ কোম্পানীর। এই কাভার্ড ভ্যানের মাধ্যমে তাদের অন্য প্রতিষ্ঠানে গ্যাস সরবরাহ হয়ে থাকে।

তবে একই অপরাধে ইতিপূর্বে জরিমানা দেয়ার কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন, এসব ঘটনা আমার স্মরণে নেই।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিষ্ট্রিবিউশন কোম্পানীর ব্যবস্থাপক মামুনুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এভাবে গ্যাস সরবরাহ করা বৈধ নয়। যেহেতু গভীর রাতে অবৈধভাবে গ্যাস সরবরাহ করা হয়ে থাকে খোঁজ নিয়ে পাম্পের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে অ‌বৈধ স্থাপনা উ‌চ্ছেদ আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৩ সদস্য গ্রেফতার ইউএনও'র বিরুদ্ধে করা সেই মামলাটি প্রত্যাহার করলেন বাদীর কুমুদিনী হাসপাতাল খেয়াঘাটে বাঁশের সাঁকো ভেঙ্গে জনদুর্ভে সংস্কারের নামে ঐতিহ্যবাহী মাঠের টাকা লুটের অভিযোগ ঘাটাইলে সরকারী ভাবে ধান ও চাল সংগ্রহ শুরু বিটেকের সাবেক শিক্ষার্থীদের ইফতার মাহফিল  দেশে প্রয়োজনের বেশি ধান চাষ হচ্ছে : কৃষিমন্ত্রী নদীর বেইলী ব্রিজ দেবে যান চলাচল বন্ধ ঝড়ে লন্ডভন্ড ঘরবাড়ি বিড়ি শিল্প রক্ষার্থে আঞ্চলিক সমাবেশ ও মানববন্ধন নগর নাট্যদলের দোয়া ও ইফতার মাহফিল বিভিন্ন রেস্তরায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অর্থদন্ড মেয়ের লাশের ছবি দেখে সনাক্ত করলেন মা ১ হাজার ৪০ টাকা মণে ধান সংগ্রহ শুরু

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

নির্মান ও ডিজাইন : মঈনুল ইসলাম, পাওয়ার বাই: জিরোওয়ানবিডি